বিসমিল্লাহ শরিফের কতিপয় ফজিলতঃ

 

মন্ত্রগুরু

 

বিসমিল্লাহ শরিফের কতিপয় ফজিলতঃ
“বিসমিল্লাহ হির রহমানির রাহিম”
বিধিঃ অবশ্যই প্রতিটি আমলের জন্য একজন কামেল ব্যক্তির যর্থাথ অনুমতি ও সঠিক বিধি মেনে পড়তে হবে।
১ম) যে কোন সৎ উদ্দেশ্য পূরনের জন্য উক্ত আয়াত শরিফ এক রাত্রে ১২ (বার) হাজার পাঠ করিলে এবং প্রতি হাজারের পর দুই রাকাত নফল নামজ পড়িতে হইবে।
২য়) প্রতিদিন (মুসলিম) ফজর ও এশা নামাজ বাদে যদি ৭৮৬ (সাত শত সিয়াষি) বার উক্ত আয়াত পাঠ করা হয় তবে সকল রকম বিপদাপদ থেকে নিরাপদ থাকা যায়।
৩য়) বর্ষা মৌসুমের বন্যার পানী সংরক্ষন করে যদি উক্ত আয়াত এক হাজার বার বিধি মত পাঠ করে পানিতে ফু দিয়ে কোন ব্যক্তি পান করে তবে সে সকলের নিকট প্রিয় পাত্র হবে এবং নেতা হয়ে যাবে।
৪র্থ) বর্ষা মৌসুমের বন্যার পানী সংরক্ষন করে যদি উক্ত আয়াত এক হাজার বার বিধি মত পাঠ করে পানিতে ফু দিয়ে কোন ব্যক্তি একাধারে সাতদিন পান করিলে সেই ব্যক্তির মেধাশক্তি ও ধী-শক্তি প্রখর হইবে।
৫ম) প্রতিদিন প্রযাপ্ত পরিমানে পাঠ করিতে থাকলে স্রষ্টার কৃপায় সে মালদার হইবে এবং রোজগারে বরকত হইবে।
৬ষ্ঠ) কোন অত্যাচারির সামনে বসিয়া যদি মনে মনে উহা তেলাওয়াত করা হয় তবে অত্যাচারির হৃদয় কোমল হইবে সে আর অত্যাচার করিতে পারিবে না।
৭ম) প্রতিদিন ঘুমানোর আগে যদি কোন ব্যক্তি আড়াই হাজার বার পাঠ করে ঘুমায় তবে সমস্ত মাখলুক তার অনুগত হইবে।
৮ম) অনাবৃষ্টির সময় খাছ দিলে যদি কেউ বিধি মত মাত্র ৭১ (একাত্তর) বার পাঠ করে বৃষ্টির জন্য র্পাথনা করে তবে অবশ্যই বৃষ্টি হইবে।
৯ম) কোন ব্যক্তি যদি সূর্যদ্বয়ের সময় কেবলার দিকে মুখ করিয়া তিনশত তেরবার উহা পাঠ করে এবং শেষে একশত বার যে কোন দরুদ পাঠ করে তবে তার রোজগার উত্ত্বরত্তর বৃদ্ধি পাইবে।
১০ম) কোন কয়েদি ব্যক্তি যদি কয়েদ খানায় বসিয়া বিধি মোতাবেক এক বৈঠকে ১০০০( এক হাজার) বার পাঠ করে তবে তার কয়েদ থেকে মুক্তির পথ সুগম হইবে।
১১তম) ঘুমানোর আগে যদি বিধি মোতাবেক কোন ব্যক্তি মাত্র ২১ বার তেলাওয়াত করে ঘুমায় তবে তার ঘরে সেদিন চোর, ডাকাত, দেও, দানব, জ্বীন, শয়তান কেহই উপদ্রব করিতে পারিবে না।
১২তম) কোন উন্মাদ পাগল বা মৃগি রুগীর বা জ্বীন ধরা রোগীর কানে কানে বিধি মোতাবেক ৪১ (একচল্লিশ ) বার পাঠ করে যদি তাকে দম করা যায় তবে তার এই সমস্যা লাঘব হইবে।
১৩তম)  প্রেসমেন্ট কাগজ বা যে কোন পবিত্র কাগজে বা চামড়ায় বা কাপড়ে নিয়ম মাফিক ৬২৫ ( ছয় শত পচিঁশ ) বার লিখে সংগে রাখিলে সে ব্যক্তিকে সকলে সম্মান করে এবং তার সমাজে সু-নাম প্রতিষ্ঠা হয়।
ইহা ছাড়াও এই মহিম্মানিত আয়াতের আরও অসংখ্য গুনাগুন রয়েছে যদি বিধি মোতাবেক ইহা পাঠ করা হয় তবে তার সকল প্রকার সমস্যা বা প্রয়োজন মেটানো সম্ভব।

Share:

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on pinterest
Pinterest
Share on linkedin
LinkedIn

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Posts

অষ্টমাতৃকা ও ৬৪ যোগিনী

অষ্টমাতৃকা ও ৬৪ যোগিনী সুপ্রভাত এইমহামারীর হাত থেকে উদ্ধার হ ওয়ার জন্য আজকের বিশেষ প্রতিবেদন অষ্টমাতৃকা ও ৬৪ যোগিনী (পূনঃপ্রচার) আপনারা অষ্ট মাতৃকা এবং ৬৪টি

রাশিচক্র বা জন্ম রাশি

জ্যোতিষ ও বিজ্ঞান ………… বাস্তু ও জ্যোতিষ ……………………….. ছয়টি বেদাঙ্গের একটি জ্যোতিষ। প্রাচীনকালে জ্যোতিষ অনুসারে শুভ তিথি- যজ্ঞ করা হত। জ্যোতি অর্থ আলো। বিভিন্ন গ্রহ-নক্ষত্র

বশিকরণ/বাধ্যকরণ/হিপনোটাইজ

  পবিত্র মাহে রমজানুল মোবারক উপলক্ষে মন্ত্রগুরু এ্যসোসিয়েশনের শুভাকাঙ্খীদের বিশেষ অফার~ আজ হতে পবিত্র ঈদুল ফিতরের রাত্রি পর্যন্ত আপনারা পাচ্ছেন সকল বশিকরণ কাজে বিশেষ ছাড়,

বিশ্বাস বনাম বিজ্ঞান

আপনি যগতের যে প্রান্তেই থাকুন না কেনো, এই অবস্থার মুখোমুখি আপনাকে হতেই হবে, গোটা কতক জগৎ সর্ম্পকে বিশেষ জ্ঞানী (অজ্ঞ), ব্যক্তির মতে শুধু আমাদের এশিয়ার

হারানো মনের মানুষকে ফিরে পেতে

আমরা সাধারন মানুষ কখনই আমাদের কাছে যা আছে তার কদর বুঝি না, আমাদের আশে পাশে যারা থাকে তাদের মূল্যায়ন করি না,যারা আমাদের ভালোবাসে তাদের ভালোবাসার

গুরুজী শুনীল বর্মণ
কোলকাতা, আসাম, ত্রিপুরা, তিব্বত, মাদ্রাজ, মায়ানমার, আফ্রিকা, ব্রাজিল, আমাজন সহ বিশ্বের অর্ধশত দেশ ভ্রমন ও জ্ঞান সংগ্রহ ও বিতরণের পর বর্তমানে ইংল্যান্ড হতে মন্ত্রগুরু এ্যসোসিয়েশন পরিচালনা করে মানুষকে সঠিক তান্ত্রিক সেবার দ্বারা উপকৃত করার লক্ষ নিয়ে বাকি জীবন কাটিয়ে দেওয়ার প্রত্যাশায়।

চাঁদের অবস্থান

TodayMonday25OctoberWeek 43 | DenzelRWaning Gibbous

আমাদের অবস্থান