কিছু বশীকরণ মন্ত্রঃ

মন্ত্রগুরু

কিছু বশীকরণ মন্ত্রঃ
মন্ত্রঃ “ ওঁ নমো ভগবতে ঈশানায় সোমভদ্রায় বশমান্য স্বাহা।”
বিধিঃ উপরোক্ত মন্ত্র চন্দ্র গ্রহন কালে ১০,০০০ (দশ হাজার) বার পাঠ করে সিদ্ধ করে পরবর্তিতে যে কোন ব্যক্তিকে বশ করার কাজে ব্যবহৃত করা হয়।
মন্ত্রঃ “ ওঁ ঐং হ্রীং শ্রীং ক্লীং কালিকে সর্বান মম বশ্যং
কুরু কুরু সর্বান কামান মে সাধয় সাধয় স্বাহা।”
বিধিঃ যে কোন চন্দ্র বা সূর্যগ্রহন কালে  উপরক্ত মন্ত্র ১০,০০০ (দশ হাজার) বার পাঠ করে সিদ্ধ করে পরবর্তিতে সবাইকে বশ করতে পারবে।
(ক) সকালে  উঠে উক্ত সিদ্ধ মন্ত্র ২১ বার উচ্চারন করে, যে ব্যক্তির নাম করে নিজের মুখ জল/পানি দ্বারা প্রক্ষলন/ধৈাত করবে সেই ব্যক্তি বশীভূত হবে।
(খ) এক গেলাস জল/পানি  উক্ত সিদ্ধ মন্ত্র দ্বারা ২১ বার অভিমন্ত্রিত করে সেই জল/পানি যাকে খাওয়াবে সেই বশিভূত হবে।
মন্ত্রঃ “ওঁ ক্লং ক্লীং হ্লীং নমঃ”
বিধিঃ উপরোক্ত মন্ত্র চন্দ্র বা সূর্যগ্রহন কালে  উপরক্ত মন্ত্র ১,০০০ (এক হাজার) বার পাঠ করে সিদ্ধ করে। তবে পাতাল বাসী বশীভূত হবে। ১০,০০০ (দশ হাজার) বার পাঠ করলে দেবতা বা পরি বশিভূত হয়। ১,০০,০০০ (এক লক্ষ) বার জপ করলে ত্রিলোকের সকল প্রানী বশে চলে আসে।
মন্ত্রঃ “ওঁ নমো ভগবতী পুর পুর বেশনি পুরাধিপতয়ে সর্বজগদভয়ঙ্করি
ছিং মৈং ঊং রাং রাং রং রীং ক্লীং বালৌসঃ বঞ্চকাম বানং সর্ব শ্রীং সমস্ত
নরনারীগনং মম বশ্যং নয় নয় স্বাহা।”
বিধিঃ যে কোন শুভ মুহুর্তে উক্ত মন্ত্র ১০,০০০ (দশ হাজার) বার পাঠ করলে এই মন্ত্র সিদ্ধ হবে। মন্ত্র সিদ্ধির পর যে কোন সময় উক্ত সিদ্ধ মন্ত্র ২৫ বার জপ করে নিজের মুখের উপর হাত দিয়ে বুলাবে তার পর যার দিকে তাকাবে সেই বশীভূত হবে।
মন্ত্রঃ “ওঁ নমো ভগবতি চামুন্ডে মহাহৃদয় কম্পিনি স্বাহা।”
বিধিঃ যে কোন শুভ মুহুর্তে উক্ত মন্ত্র ১০,০০০ (দশ হাজার) বার পাঠ করলে মন্ত্র সিদ্ধ হবে। মন্ত্র সিদ্ধির পর একটি পান উক্ত মন্ত্রে ২১ বার অভিমন্ত্রিত করে যে কোনও স্ত্রী-পুরুষকে খাওয়ালে সেই ব্যক্তি অবশ্যই বশীভূত হবে।
মন্ত্রঃ “ওঁ নমো আদেশ গুরু কি রাজ্ঞা মোহুং, প্রজা মোহুং, ব্রাহ্মণ বানিয়াঁ, হনুমন্ত রুপ মেঁ জগৎ মোহুং, তো রামচন্দ্র পর মানিয়া, গুরু কি শক্তি মেরী ভক্তি ফুরো মন্ত্র ঈশ্বরী বাচা।”
বিধিঃ যে কোন শুভ মুহুর্তে ধুপ, দীপ, নৈবাদ্য সাজিয়ে প্রথমে শ্রীরামচন্দ্রের ধ্যান করে পূজা করবে। পরে ২১ দিন পর্যন্ত উক্ত মন্ত্র ১২১ বার করে জপ করলে উক্ত মন্ত্র সিদ্ধ হয়। এবার কোন গ্রামের চৌরাস্তায় গিয়ে সেখান থেকে ধুলা নিয়ে সেই ধুলাকে ৭ বার উক্ত মন্ত্রে অভিমন্ত্রিত করে নিজের কপালে তিলক দিলে যে ব্যক্তি সাধকের দিকে তাকাবে বা দৃষ্টি দিবে সেই ব্যক্তি বশীভূত হবে।

Share:

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on pinterest
Pinterest
Share on linkedin
LinkedIn

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Posts

অষ্টমাতৃকা ও ৬৪ যোগিনী

অষ্টমাতৃকা ও ৬৪ যোগিনী সুপ্রভাত এইমহামারীর হাত থেকে উদ্ধার হ ওয়ার জন্য আজকের বিশেষ প্রতিবেদন অষ্টমাতৃকা ও ৬৪ যোগিনী (পূনঃপ্রচার) আপনারা অষ্ট মাতৃকা এবং ৬৪টি

রাশিচক্র বা জন্ম রাশি

জ্যোতিষ ও বিজ্ঞান ………… বাস্তু ও জ্যোতিষ ……………………….. ছয়টি বেদাঙ্গের একটি জ্যোতিষ। প্রাচীনকালে জ্যোতিষ অনুসারে শুভ তিথি- যজ্ঞ করা হত। জ্যোতি অর্থ আলো। বিভিন্ন গ্রহ-নক্ষত্র

বশিকরণ/বাধ্যকরণ/হিপনোটাইজ

  পবিত্র মাহে রমজানুল মোবারক উপলক্ষে মন্ত্রগুরু এ্যসোসিয়েশনের শুভাকাঙ্খীদের বিশেষ অফার~ আজ হতে পবিত্র ঈদুল ফিতরের রাত্রি পর্যন্ত আপনারা পাচ্ছেন সকল বশিকরণ কাজে বিশেষ ছাড়,

বিশ্বাস বনাম বিজ্ঞান

আপনি যগতের যে প্রান্তেই থাকুন না কেনো, এই অবস্থার মুখোমুখি আপনাকে হতেই হবে, গোটা কতক জগৎ সর্ম্পকে বিশেষ জ্ঞানী (অজ্ঞ), ব্যক্তির মতে শুধু আমাদের এশিয়ার

হারানো মনের মানুষকে ফিরে পেতে

আমরা সাধারন মানুষ কখনই আমাদের কাছে যা আছে তার কদর বুঝি না, আমাদের আশে পাশে যারা থাকে তাদের মূল্যায়ন করি না,যারা আমাদের ভালোবাসে তাদের ভালোবাসার

গুরুজী শুনীল বর্মণ
কোলকাতা, আসাম, ত্রিপুরা, তিব্বত, মাদ্রাজ, মায়ানমার, আফ্রিকা, ব্রাজিল, আমাজন সহ বিশ্বের অর্ধশত দেশ ভ্রমন ও জ্ঞান সংগ্রহ ও বিতরণের পর বর্তমানে ইংল্যান্ড হতে মন্ত্রগুরু এ্যসোসিয়েশন পরিচালনা করে মানুষকে সঠিক তান্ত্রিক সেবার দ্বারা উপকৃত করার লক্ষ নিয়ে বাকি জীবন কাটিয়ে দেওয়ার প্রত্যাশায়।

চাঁদের অবস্থান

TodayWednesday21AprilWeek 16 | SelmaIFirst Quarter

আমাদের অবস্থান